Share Market

বাড়লো ইনফোসিসের মুনাফা, পড়লো ইনফোসিসের শেয়ার দর

ইনফোসিস-এর মুনাফা বেড়েছে। চলতি বছরের দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে নিট মুনাফার পরিমান ১২.১% বেড়ে ৩,৩৯৮ কোটি টাকা হয়েছে। বিগত ১৬টি ত্রৈমাসিকের মধ্যে এবারই প্রথম এই পরিমানে মুনাফা অর্জন করলো দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম আইটি সংস্থা। প্রাপ্ত রিপোর্টে থেকে জানা যাচ্ছে, এই সংস্থার ডলার থেকে আয়ের পরিমান দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে ৬% বেড়েছে। শেয়ার প্রতি ১০টাকা অন্তর্বর্তী ডিভিডেন্ট দেবে ইনফোসিস।

ইনফোসিসের এই আশাতীত মুনাফায় শেয়ার বাজারে যতটা তেজিভাব (http://www.enewstime.in/?p=859) দেখা যাবে বলে মনে করা হয়েছিল, তা সকাল ১০টা পর্যন্ত দেখা যায় নি। ইনফোসিসের দর পড়েছে প্রায় ২.৩%। ফলে শেয়ার বাজারের আজ শুরুটা ভাল হলেও, সকাল ১০টায় নিফটি সামান্য বেড়ে ৮২০০-এর আশেপাশে আছে। এক্সিস ব্যাঙ্ক, এশিয়ান পেইন্টস এবং বিভিন্ন মেটাল শেয়ারগুলির দর কিছুটা বেড়েছে। ব্যাঙ্ক অব বরোদা জালিয়াতি নিয়ে সিবিআই ৫০টি রেইড চালিয়েছে। যদিও সংস্থার পক্ষ থেকে অনুমান করা হচ্ছে, জালিয়াতির জন্য ঐ ব্যাঙ্কের আর্থিক ক্ষতি হবে না, তাসত্ত্বেও এই মুহুর্তে ব্যাঙ্ক অব বরোদার শেয়ার নিয়ে ফাটকা খেলা বা দীর্ঘমেয়াদি বিনিয়োগ উচিত হবে না বলেই বিশেষজ্ঞদের ধারণা।

Ad3 copy

Nandancharcha

Ad3 copy

 

শেয়ার বাজার বিশেষজ্ঞরা ডে-ট্রেডিং কিংবা স্বল্প মেয়াদি বিনিয়োগের জন্য মিড-ক্যাপ ক্ষেত্রের যেসব শেয়ারের দিকে নজর রাখছেন, সেগুলির মধ্যে রয়েছে ফর্টিস হেল্থ কেয়ার, এসকর্ট, ডাবর ইন্ডিয়া। ফর্টিসের শেয়ারের জন্য ১৬৭ টাকা স্টপলস ধরে টার্গেট ১৭৫ টাকা ধরে খেলতে হবে। এসকর্টের ক্ষেত্রে টার্গেট হল ১৬৯ টাকা এবং স্টপলস 162 টাকা। ডাবরের শেয়ারের জন্য বিশেষজ্ঞরা টার্গেট ২৮৫ টাকা ধরে ২৭৭ টাকায় স্টপলস ব্যবহার করতে হবে বলে পরামর্শ দিয়েছেন। (http://www.enewstime.in/?p=859) এছাড়া বিশেষজ্ঞদের মতে বায়োকন ও ভোল্টাসের শেয়ারও আকর্ষণীয়। বিশেষজ্ঞদের মতে, বায়োকনের জন্য ৪৩৬ টাকা স্টপলস করে ৪৫৮ টাকা টার্গেট ধরে খেলা যেতে পারে। ভোল্টাসের জন্য স্টপলস হল ২৭১ টাকা এবং টার্গেট ২৯০ টাকা। একটু বেশি ঝুঁকি থাকলেও স্বল্প সময়ের জন্য ভারত ফোর্জ শেয়ার সম্পর্কে আশাবাদী কেআর চোকসি’র শেয়ার বিশেষজ্ঞ। তাঁর পরামর্শ, ৯৪৭ টাকার আশেপাশের দামে এই শেয়ারটি কেনা যেতে পারে। স্বল্প মেয়াদে এর জন্য টার্গেট ৯৬৪টাকা এবং স্টপলস ৯৪০ টাকা।

বলে রাখা ভাল, এশিয়ার বাজারগুলিতে তেমন তেজিভাব না দেখা গেলেও, নিফটি-সেনসেক্সের মতো এশিয়ার অন্য দেশের শেয়ার বাজার গ্রিন জোনে আছে।

(এই আলোচনা অনুযায়ী শেয়ার কেনাবেচা করে লাভ-লোকসানের জন্য প্রো-মাস দায়ী নয়)  

Click to comment

You must be logged in to post a comment Login

Leave a Reply



Most Popular

 

 

More Posts
To Top